বাঁশখালী বঙ্গবন্ধু উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন স্কুলের পাশে মসজিদের সামনে সড়কের দৃশ্য। ছবি-রানা

বাঁশখালী নিউজ ডেস্কঃ

ধারাবাহিক-০১

[কোটি টাকার বাজেট যায় কোথায়?] 

বাঁশখালীর অভ্যন্তরিন সড়ক পথ। দেখলেই মনে হবে নদীপথ একেঁবেকে যাচ্ছে। “আমাদের ছোট নদী চলে বাঁকে বাঁকে, বৈশাখ মাসে তার হাঁটুজল থাকে।” এখন ছোট নদীর মতো সড়ক গুলোই হাঁটুজলে ভরা থাকে।
বর্ষাকালে সড়কের এমন দৃশ্য প্রায়ই সচরাচর একটা বিষয়। বাঁশখালী বঙ্গবন্ধু উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন সড়কটি দেখেই বুঝা যায় আমরা মান্ধাতার আমলে আছি। শীলকুপ ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন সড়কটি জালিয়াখালী বাজার পর্যন্ত গেছে। পুরো সড়কটিই যেন একটি নদীপথ। কাঁদা মাড়িয়ে, এক থেকে দেড় বিগত পানির উপর দিয়ে যাতায়ত করছে আমাদের সাধারণ ছাত্র/ছাত্রী থেকে শুরু করে যাত্রী সাধারণ। প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ চলাচল করে এই সড়ক দিয়ে। দূর্ভোগের সীমা আকাশ ছুঁয়েছে!

এই সড়কে চলাচলরত যানবাহন গুলো বিকল হয়ে যাচ্ছে, যন্ত্রপাতি গুলো অকেজো হয়ে পড়ছে। বিশেষ করে কোমলমতি শিশু কিশোরদের যাতায়তে বিঘ্ন ঘটছে। স্কুল ব্যাগ বোঝাই শিক্ষার্থীরা প্রতিনিয়ত চরম অনীহার মাঝে পারাপার করছে সড়ক দিয়ে। একটু বৃষ্টি হলেই সড়কটি নদীর রুপ নেয়। চলাচলের অযোগ্য হয়ে যায় বৃষ্টির স্রোতে। যথাযত কতৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করছি। আপনাদের আন্তরিকতায় সড়কটি প্রাণ ফিরে পাবে। শিগ্রই সড়কের মেরামত কাজ সম্পন্ন করার জন্য কতৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।